Skip to Content

Tuesday, October 16th, 2018
আমরা মুখে দেশপ্রেমের কথা বলি – ইঞ্জিনিয়ার এজাজ-উল-হক-বান্না

আমরা মুখে দেশপ্রেমের কথা বলি – ইঞ্জিনিয়ার এজাজ-উল-হক-বান্না

Be First!

পাট, তাঁত ও বস্ত্র এই আমার অস্ত্র এই স্লোগান নিয়ে দেশিয় পণের প্রচার ও প্রশার এ কাজ করে চলেছেন সাবেক ছাত্র নেতা; তাঁতী লীগ, ঢাকা মহানগর উত্তরের সাবেক সংগ্রামী তাঁত ও বস্ত্র সম্পাদক ও বর্তমান ঝিনাইদহ জেলা তাঁতী লীগ আহবায়ক তাঁত ও বস্ত্র নেতা ইঞ্জিনিয়ার এজাজ-উল-হক-বান্না। তিনি পেশায় একজন টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ার। পাট, তাঁত ও বস্ত্রের সাথে তাঁর আছে নিবির সম্পর্ক।

তাঁত ও বস্ত্র নেতা ইঞ্জিনিয়ার এজাজ-উল-হক-বান্না বলেন, আমরা অনেকে মুখে দেশপ্রেমের কথা বলি। কিন্তু পাকিস্তানের পোশাকে আমাদের দেশের বাজার সয়লাব, এ নিয়ে তো কিছু বলি না। তারা আমাদের দেশ এ কিভাবে  ব্যবসার সুযোগ পাচ্ছে ।কে  করে দিচ্ছে? আমরাই তো। আমরা না চাইলে তারা এখনও এখানে কিভাবে ব্যবসা করে?

বর্তমান কাজ সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি বাংলাদেশ টেক্সটাইল ও ফ্যাশন সেক্টর নিয়ে কাজ করি। বর্তমানে তাঁতিদের নিয়ে কাজ করি। তাদের শিক্ষা ও স্বাস্থ্যের উন্নয়নের জন্যও কাজ করব। বাংলাদেশ ফ্যাশনের প্রচার ও প্রশারের জন্য আমি ২০১৫ সালে প্রথম ফ্যাশন বিষয়ক একটি টিভি চ্যানেল “ফ্যাশন বাংলা .টিভি” নামে একটি আইপি টিভি পরিচালনা করে আসছি। এছাড়াও ফ্যাশন সেক্টরের উন্নয়নে অনেক দিন ধরে একটি সংগঠন করে আসছি। আল্লাহর রহমতে সরকারের নিবন্ধনের জন্য ফ্যাশন বাংলা সোসাইটি নামে সংগঠনটি নিবন্ধিত সম্পূর্ণ হবে শিগ্রই।আমাদের এই সংগঠনে ফ্যাশন সেক্টরের সাথে সম্পৃক্ত যে কেও যুক্ত হতে পারবে। আমরা আমাদের নতুন নতুন কর্মসূচি নিয়ে ২০১৮ হাজির হবো।

তিনি বলেন বিজয় দিবসে পোশাকে পতাকা ব্যবহার দেশপ্রেম নয়, বরং অবমাননা।পতাকা কোন মাপে, কিভাবে ব্যবহার হবে তার একটি নির্দিষ্ট রীতিনীতি আছে। এটি পবিত্রতা ও শ্রদ্ধার প্রতীক।

স্বাধীনতা পরবর্তীকালে, ১৯৭২ সালে পতাকা আইন করা হয়েছিল। ২০১০ সালের জুলাই মাসে আইনটি সংশোধিত হয়, যার পেছনে মূল পর্যবেক্ষণ ছিল বিশেষত নাগরিকদের অজ্ঞতার কারণে জাতীয় পতাকার অবমাননা। সংশোধনীতে সর্বোচ্চ ২ বছর পর্যন্ত শাস্তি এবং ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ডের বিধান রাখা হয়। না জেনে, না বুঝে আর অতি-উচ্ছ্বাসে যারা পতাকার ব্যবহারবিধি লংঘন করেন, তাদের অপরাধের মাত্রা বিবেচনা করে এ শাস্তিবিধান যথাযথ হতে পারে। তবে কোনো প্রতিষ্ঠান যদি বাণিজ্যিক প্রচারণায়, বিজ্ঞাপনে জাতীয় পতাকার ব্যবহার বিধিবহির্ভূতভাবে করে থাকে, সে জন্য ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড ন্যায়সঙ্গত নয়। অপরাধের মাত্রা ভেদে অর্থদণ্ডের পরিমাণ বৃদ্ধি করার আইনি বিষয়টি রাষ্ট্র বিবেচনায় আনতে পারে।

আমি আইন নয় আইনের প্রয়োগ চাই।

Previous
Next

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

>
Facebook